বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

বিশেষ বিজ্ঞপ্তি
পবিত্র ঈদ-উল-আযহা  উপলক্ষে জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন বাগেরহাট জেলা কমিটির পক্ষ থেকে সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা ঈদ মোবারক
সংবাদ শিরোনাম :
চুলকাটিতে বিশাল গরু ছাগলের হাটের শুভ উদ্বোধন  চুলকাটি বাজার রেলস্টেশনে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় মোল্লাহাটে টিসিবির ৫৪০ লিটার সয়াবিন তেলসহ আটক ১ মোল্লাহাটে শিশু যত্ন কেন্দ্রের কেয়ার কিপারদের ৭ দিন ব্যাপী মৌলিক প্রশিক্ষণ উদ্বোধন বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে পরিবেশ বান্ধব চারা বিতরণ জাতীয় সাংবাদিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের বাগেরহাট জেলা-কমিটি অনুমোদন নয়ন স্মৃতি নাইট শর্ট ক্রিকেট টুর্নামেন্টে সৈয়দপুর চ্যাম্পিয়ন আত্মসমর্পণকারী দস্যুরা পেল র‌্যাবের ঈদ উপহার বাগেরহাটে দুস্থ ও অসহায়দের মধ্যে ঈদ উপহার বিতরণ করেছেন শেখ তন্ময় এমপি বুয়েটে ছাত্র রাজনীতির দাবিতে মোংলায় মানববন্ধন
জাটকা নিষেধাজ্ঞার চার মাসেও প্রথম ধাপের চাল পায়নি মোংলার জেলেরা

জাটকা নিষেধাজ্ঞার চার মাসেও প্রথম ধাপের চাল পায়নি মোংলার জেলেরা

বাগেরহাট অফিস
নভেম্বর থেকে জুন মাস পর্যন্ত ৮ মাস সুন্দরবন উপকূলে ইলিশের প্রজনন মৌসুমসহ জাটকা আহরণে নিষেধাজ্ঞা থাকে। এই নিষেধাজ্ঞা কারণে মোংলার ১ হাজার ১০ জন নিবন্ধিত জেলে নদীতে মাছ ধরতে পারেনি। সরকারের পক্ষ থেকে এই ৮ মাসে দুই দফায় জেলেদের জনপ্রতি ৮০ কেজি করে ১৬০ কেজি চাল বরাদ্দ করেছে। সরকার চাল বরাদ্দ দিলেও মোংলা উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের নিবন্ধিত ২৭০ জন জেলে এখনও প্রথম দফারই চাল পায়নি। মোংলা উপজেলা জেষ্ঠ্য মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম জানান, মোংলার ১ হাজার ১০ জন নিবন্ধিত জেলে রয়েছে। নিষেধাজ্ঞার কারনে সরকার জেলেদের জনপ্রতি ৮০ কেজি করে সর্বমোট দুই দফায় এক লাখ ৬১ হাজার ৬০০ কেজি চাল বরাদ্দ দিয়েছে। প্রথম দফায় জেলেদের চাল দেওয়া হয়ে গেছে। দ্বিতীয় দফার চালও ঈদের দুই সপ্তাহ আগে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিছু এলাকার জেলেরা দ্বিতীয় দফার চালও পেয়েছেন। চাঁদপাই ইউনিয়নের ২৭০ জন জেলেরা এখনও প্রথম দফারই চাল ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানর এখনো দেয়নি। তাকে একাধিকবার বলা হলেও তিনি গুরুত্ব দিচ্ছেননা। তার গাফিলতির অসহায় জেলেরা প্রতিদিন মৎস্য অফিসে এসে অভিযোগ করছেন। জাতীয় মৎস্যজীবি জেলেদের মোংলার সভাপতি বিদ্যুৎ মন্ডল বলেন, প্রতিবারই নিষেধাজ্ঞার সময়ে তাদের হাতে চাল পৌঁছাতে অনেক সময় লাগে। অন্যান্য ইউনিয়নের জেলেরা চাল পেলেও চাঁদপাই ইউনিয়নের নিবন্ধিত ২৭০ জন জেলে এখনও প্রথম দফারই চাল পায়নি। এনিয়ে প্রতিদিন উপজেলা মৎস্য অফিসে ঘোরাঘুরি করেও কোন লাভ হচ্ছেনা। ছেলে মেয়েদর নিয়ে কিভাবে সংসার চলে বলেন ? দক্ষিন কাইনমারীর জেলে শিমন বিশ্বাস ও কিতর বাড়ই বলেন, নিষেধাজ্ঞায় প্রনোদনার চাল না পেয়ে এখন তারা অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। অবিলম্বে সরকারিভাবে তাদের জন্য বরাদ্দকৃত চাল পেতে চান তারা। মোংলা উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) দীপকংর দাশ বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিল না, এখনই চাঁদপাই ইউপি চেয়ারম্যানকে বলে জেলেদের চাল দেয়ার ব্যবস্থা করছি।
চাঁদপাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোল্লা তরিকুল ইসলাম বলেন, বুধবার জেলেদের চাল দিয়ে দেব।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

  1. © স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০২০২১, www.chulkati24.com

কারিগরি সহায়তায়ঃ-SB Computers