রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৬:৩৩ অপরাহ্ন

বিশেষ বিজ্ঞপ্তি
ভর্তি চলিতেছ রৌফন রেডিয়ান্ট স্কুলে প্লে গ্রুপ থেকে শুরু। চুলকাটি বাজার, (রুটস বাংলাদেশ) বনিকপাড়া রোড, বাগেরহাট।
সংবাদ শিরোনাম :
বর্ণাঢ্য আয়োজনে রামপালে জাতীয় ভোটার দিবস পালন রামপালে স্থানীয় সরকার দিবস উদযাপন  বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা  প্রয়োজনীয় ঔষধ সামগ্রী বিতরণ করেছে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন পশুর চ্যানেলে তলা ফেটে দুর্ঘটনাকবলীত কার্গো জাহাজটি এখও ঝুকি মুক্ত নয়, চলছে কয়লা অপসারণ মোংলায় কয়লা নিয়ে পশুর নদীতে কার্গো ডুবি, ১১ নাবিক জীবিত উদ্ধার মোংলা বন্দরের সিবিএ’র কর্মচারী সঘের সাবেক সাঃ সম্পাদক এস এম ফিরোজ সহ ৩ জনের সদস্য পদ বাতিল ফকিরহাটের মাসকাটায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হামলার ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের। মাদারদিয়া আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা  মোংলা বন্দর ও উপকুলীয় এলাকায় হঠাৎ বৃষ্টি কেএমপি’র মাদক বিরোধী অভিযানে মাদক কারবারি ৮ জন আটক
ফকিরহাটে খোয়া যাওয়া গুলিসহ শর্টগান ১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি : জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

ফকিরহাটে খোয়া যাওয়া গুলিসহ শর্টগান ১৮ দিনেও উদ্ধার হয়নি : জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

প্রতীকী ছবি 

আরিফ ঢালী, (নিজস্ব  প্রতিবেদক) : ফকিরহাট উপজেলার আট্টাকী গ্রামের শাহ জামান চৌধুরী লরের ব্যবহৃত .১২ বোর শর্টগান, তিন রাউন্ড গুলি ও দু’টি মোবাইল ফোন তার বাড়ি থেকে গত ৩০ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে চুরি হয়েছে উল্লেখ করে মডেল থানায় তিনি একটি চুরি মামলা দায়ের করেন। তবে ঘটনার পর ১৮ দিন অতিবাহিত হলেও অস্ত্র-গুলি উদ্ধার হয়নি। এদিকে ঘটনাটি চুরি নাকি অন্য কিছু তা নিয়ে জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। থানা পুলিশ এবং উক্ত পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ সেপ্টেম্বর রাত ৭ টা ১৫ মিনিটে শাহ জামান চৌধুরি লরে ফকিরহাট মডেল থানায় হাজির হয়ে একটি এজাহার দায়ের করেন। তিনি এজাহারে উল্লেখ করেন, ২০১৬ সালে তার নামে তুর্কির তৈরি একটি .১২ বোর শটগান ক্রয় করেন, যার নং-১৭৭৫৯। শটগান ব্যবহারের লাইসেন্স নং-০৬/২০১৬। তিনি প্রতি রাতে ঘুমানোর সময় লাইসেন্সকৃত অস্ত্রটি, তিনটি খোলা বুলেটসহ তার মাথার কাছে বালিশের পাশে রেখে ঘুমিয়ে থাকেন। গত ২৯ সেপ্টেম্বর রাত অনুমানিক ১১টার সময় তিনি, স্ত্রী এবং তার ভাগ্নি রাতের খাওয়া দাওয়া শেষে থানার আট্টাকী গ্রামের দুই তলা বিশিষ্ট বাড়ির নিচ তলায় উত্তর-পূর্ব পাশের রুমে তার স্ত্রী এবং ভাগ্নি ঘুমিয়ে পড়ে। তিনি দ্বিতীয় তলার উত্তর-পূর্ব পাশের রুমে গিয়ে দরজার ছিটকিনি লাগিয়ে টিভি দেখে রাত ২টার দিকে বালিশের কাছে জানালার পাশে উক্ত শটগানসহ তার ব্যবহৃত দু’টি মোবাইল ফোন সেট খাটের উপর রেখে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোর ৫ টার দিকে তিনি ঘুম থেকে উঠে ফজরের নামাজ পড়ে আবার ঘুমিয়ে পড়েন। তখন তিনি অস্ত্র ও মোবাইল ফোনের বিষয়ে লক্ষ্য করেননি। সকাল সাড়ে ৭টায় ঘুম থেকে উঠে তিনি দেখেন মোবাইল ফোন দু’টি, তার শটগান এবং শটগানের তিনটি খোলা বুলেট নেই। তার ধারনা রাতের যে কোনো সময় অজ্ঞাত চোরেরা উক্ত মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। খোয়া যাওয়া মালামাল অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে তিনি থানায় অভিযোগটি দায়ের করেন। এদিকে ঘটনার পর ১৮ দিন অতিবাহিত হলেও খোয়া যাওয়া অস্ত্র-গুলি এখনো উদ্ধার করতে পারেনি থানা পুলিশ। তবে মামলার এজাহার এবং প্রাথমিক তথ্য বিবরণীতে দুই ধরনের বক্তব্যে নানা প্রশ্ন উঠেছে। ঘটনার স্থান সম্পর্কে কোথাও বলা হচ্ছে বাড়ির নিচ তলায় উত্তর-পূর্ব পাশের রুম আবার কোথাও বলা হচ্ছে দ্বিতীয় তলার উত্তর-পূর্ব পাশের রুম। অস্ত্রটি উদ্ধার না হওয়ায় জনমনে ভীতি সঞ্চার হচ্ছে। বৈধ অস্ত্র অবৈধ হয়ে গেলে নাগরিকদের জীবন-জীবিকা নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়বে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তি, শিল্পপতি ব্যবসায়ী এবং ফকিরহাটের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিরাপত্তার স্বার্থে পিবিআই এর মাধ্যমে তদন্ত করে দ্রুত অস্ত্রটি উদ্ধারসহ ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনের জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

  1. © স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০২০২১, www.chulkati24.com

কারিগরি সহায়তায়ঃ-SB Computers