রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৬:৫৭ অপরাহ্ন

বিশেষ বিজ্ঞপ্তি
ভর্তি চলিতেছ রৌফন রেডিয়ান্ট স্কুলে প্লে গ্রুপ থেকে শুরু। চুলকাটি বাজার, (রুটস বাংলাদেশ) বনিকপাড়া রোড, বাগেরহাট।
সংবাদ শিরোনাম :
বর্ণাঢ্য আয়োজনে রামপালে জাতীয় ভোটার দিবস পালন রামপালে স্থানীয় সরকার দিবস উদযাপন  বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা  প্রয়োজনীয় ঔষধ সামগ্রী বিতরণ করেছে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন পশুর চ্যানেলে তলা ফেটে দুর্ঘটনাকবলীত কার্গো জাহাজটি এখও ঝুকি মুক্ত নয়, চলছে কয়লা অপসারণ মোংলায় কয়লা নিয়ে পশুর নদীতে কার্গো ডুবি, ১১ নাবিক জীবিত উদ্ধার মোংলা বন্দরের সিবিএ’র কর্মচারী সঘের সাবেক সাঃ সম্পাদক এস এম ফিরোজ সহ ৩ জনের সদস্য পদ বাতিল ফকিরহাটের মাসকাটায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হামলার ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের। মাদারদিয়া আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা  মোংলা বন্দর ও উপকুলীয় এলাকায় হঠাৎ বৃষ্টি কেএমপি’র মাদক বিরোধী অভিযানে মাদক কারবারি ৮ জন আটক
খুলনা-বাগেরহাট রেলের জমিতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নোটিশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের

খুলনা-বাগেরহাট রেলের জমিতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নোটিশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের

স্টাফ রিপোর্টার:   
বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তার সাক্ষরিত এ নোটিশে দখলকৃত জমির বিবরন দিয়ে বলা হয়েছে, ১৯৭০ সালের ২৪নং জরুরি অধ্যাদেশের ৫নং বিধির (১) উপবিধি প্রদত্ত বিধানের অধীন বিধি বলে নির্দেশ প্রদান করা হচ্ছে যে অবৈধ দখলকৃত রেলভূমি খালি করে সংশ্লিষ্ট এসএসএই/কার্য্য, স্টেশন মাস্টার অথবা অধীক্ষেত্রের ফিল্ড কানুনগো/আমিন খুলনার নিকট নিজ দায়িত্বে সাতদিনের মধ্যে বুঝিয়ে দিয়ে সনদ গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় উক্ত বিধির (২) উপবিধি মোতাবেক উচ্ছেদের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং দখলকালীন সময়ের জন্য সরকারের প্রাপ্য অনুসারে ও উচ্ছেদের যাবতীয় খরচ দখলদারকে বহন করতে হবে। ১৯৯৬ সালে খুলনা-বাগেহাট রেল চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আর ২০০৮ সালে তুলে ফেলা হয় রেললাইন। রেললাইন তুলে ফেলার পর থেকেই শুরু হয় দখলদারদের দৌরাত্ম। কিন্তু এ দিকে নজর ছিলো না রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের। ২০০৮ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ১ যুগে খুলনায় কানুনগো পদে ৬/৭ জন কর্মকর্তা আসেন। রেলের জমিতে অবৈধ স্থাপনা ও দখলদারদের উচ্ছেদে ছিল না কোন অভিযান। গত ৯ সেপ্টেম্বর “দৈনিক সময়ের খবর” পত্রিকায় ‘খুলনা-বাগেরহাটে রেলের জমিতে অবৈধ বহুতল ভবন, বাড়ছে দখলদারদের দৌরাত্ম’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশের পর টনক নড়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। রেলওয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আদেশক্রমে গত কয়েক দিনে ৬শ’ দখলদারদের তলিকা তৈরি করেছেন বর্তমান খুলনার ফিল্ড কানুনগো মনোয়ারুল ইসলাম। ইতোমধ্যে ৪শ’ ৫০ জনকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে এবং আগামী সপ্তাহের মধ্যে বাকি ১শ’ ৫০ জন দখলদারদের নোটিশ পাঠানোর কাজ সম্পন্ন করা হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

  1. © স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০২০২১, www.chulkati24.com

কারিগরি সহায়তায়ঃ-SB Computers