সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ১১:২৯ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ

আমাদের চুলকাঠি ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন chulkati24@gmail.com এই ই-মেইলে ।

শিরোনাম :
বাগান কেটেও উদ্ধার হয়নি বাঘ, আতঙ্কে গ্রামবাসী

বাগান কেটেও উদ্ধার হয়নি বাঘ, আতঙ্কে গ্রামবাসী

tiger-panchagarh, rtv online

পঞ্চগড়ের সদর উপজেলার সাতমারা ইউনিয়নের মহুরীজোত এলাকায় পরিত্যক্ত একটি ঘন চা বাগানের ভেতরের একটি চিতা বাঘসহ দুটি বাঘের বাচ্চা ঘুরে বেড়াচ্ছে এমন সংবাদ ছড়িয়ে পরে। পরে প্রশাসন ওই পরিত্যক্ত চা বাগানসহ আশপাশের ও জঙ্গলের সব গাছ কেটে ফেললেও সেখানে মেলেনি বাঘের অস্তিত্ব কিংবা সন্ধান। ফলে  বাঘ উদ্ধারের অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেছে প্রশাসন।

শনিবার (২২ আগস্ট) বিকেলে পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ হোসেন বাঘ উদ্ধার অভিযানের সমাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সেসময় বন বিভাগের ও প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা, পুলিশ ও জনপ্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

প্রশাসন জানায়, গেল চারদিন আগে মুহরীজোত এলাকার এক কৃষক বাঘ আক্রমণে তার গরু মারা গেছে, এমটা দাবি করলে খবরটি এলাকার মধ্যে ছড়িয়ে পরে। এদিকে প্রশাসন খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়।

বনবিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তারা পরিদর্শন করে ঢাকা থেকে একটি বন্যপ্রাণী শিকারি দল নিয়ে বাঘ উদ্ধারের জন্য পরিত্যক্ত চা বাগান পরিষ্কার ও বাঘ উদ্ধার অভিযান শুরু করা হয়। পরিত্যক্ত চা বাগানে স্থানীয় প্রায় অর্ধশতাধিক শ্রমিক দিয়ে ওই চা বাগানের উঁচু গাছ ও আশপাশের জঙ্গল কাটতে শুরু করলে শনিবার বিকেলে বাগানের গাছ কাটা শেষ হয়। শেষ পর্যন্ত বাঘের সন্ধান না পাওয়ায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাঘ উদ্ধার অভিযান বন্ধ ঘোষণা করে।

তবে বন বিভাগ ও স্থানীয়দের ধারণা মানুষের  জনসমাগমে  কারণে বাঘগুলো হয়তো রাতের আঁধারে চাওয়াই নদী দিয়ে ভারতের সীমান্ত দিয়ে আবারও ফিরে যেতে পারে বা নতুন করে অন্য জায়গায় আশ্রয় নিতে পারে৷ বাঘ কোথায় পালিয়ে গেলো বা আবার ফিরে আসে যদি আক্রমণ করে এনিয়ে আতংক বিরাজ করছে স্থানীদের মনে।

গেল বৃহস্পতিবার বিকেলে দিনাজপুর বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আব্দুর রহমানের নেতৃত্বে গাজীপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সাফারি পার্কের ভেটেরিনারি সার্জন হাতেম সাজ্জাদ মো. জহুর আমীন, ও ওয়ারলেস স্কাউট আতিকুল ইসলাম প্রথমে আসে পুরো পরিত্যক্ত বাগানে তল্লাশি করে এবং তাদের উপস্থিতিতে বাগান কাটার কাজ আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু হয়।

সাতমেরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান বলেন, আমরা বৃহস্পতিবার থেকে স্থানীয় শ্রমিকদের মাধ্যমে বাগানের কাজ কাটা শুরু করলে শনিবার গাছ কাটা শেষ হয় কিন্তু পুরো চা বাগান জুড়ে বাঘের সন্ধান পাওয়া যায়নি৷

সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আরিফ হোসেন জানান, মুহুরীজোত এলাকার মানুষের সন্দেহের কারণে প্রশাসনের উদ্যোগে বাগানের গাছ কাটা ও জঙ্গল পরিষ্কার করা হলে শনিবার বিকেলে বাগানের গাছ পরিষ্কার করা হলে আমরা প্রশাসন ও বনবিভাগের কর্মকর্তারা বাগানে বাঘের সন্ধান না পাওয়ায় বাঘ উদ্ধার অভিযান বন্ধ ঘোষণা করেছি।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০২০২, www.chulkati24.com

কারিগরি সহায়তায়ঃ-SB Computers