বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ

আমাদের চুলকাঠি ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন chulkati24@gmail.com এই ই-মেইলে ।

শিরোনাম :
ফকিরহাটে কর্মসম্পাদন চুক্তি( APA)আওতায় জনসম্পৃক্ততা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত আগামী সংসদ নির্বাচনের মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড এর নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে,চিতলমারি উপজেলা কমিটির আলোচনা সভা নভেম্বর ২০২২ সেভ দ্য রোড-এর প্রতিবেদন বাইক লেন না থাকায় নভেম্বরে দূর্ঘটনা বেড়ে ৪ হাজার ১৯৩ জবিসহ বিভিন্ন স্থানে সংবাদযোদ্ধাদের উপর হামলার নিন্দা ও বিচার দাবি বাগেরহাটে জামায়াত-শিবিরের ৫ নেতাকর্মী গ্রেফতার, ৪ ককটেল উদ্ধার বাগেরহাটের মোল্লাহাটে ট্রলি উল্টে চালক নিহত চুলকাটি প্রেসক্লাবে মেম্বর প্রার্থী মনিরুলের সংবাদ সম্মেলন ফকিরহাটে মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা ফকিরহাটে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস উপলক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা বাগেরহাটে সড়ক দূর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে ছাগল বিতরণ
কাজীপুরে নদীতীর রক্ষা বাঁধের ৫০ মিটার যমুনায় বিলীন

কাজীপুরে নদীতীর রক্ষা বাঁধের ৫০ মিটার যমুনায় বিলীন

সিরাজগঞ্জের কাজীপুরে ঢেকুরিয়া পয়েন্টে নদীতীর রক্ষা বাঁধের ৫০ মিটার ধসে যমুনা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। এতে হুমকির মুখে পড়েছে আশপাশের অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি এবং ফসলি জমি। ধস ঠেকাতে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) বালুর বস্তা ফেলছে।

আজ শনিবার ভোররাত থেকে এই ধস শুরু হয়ে এ পর্যন্ত ৫০ মিটার বাঁধ নদীগর্ভে চলে গেছে। ভাঙন আতঙ্কে স্থানীয়রা ঘরবাড়ি, আসবাপত্র অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে। যমুনা নদীতে প্রচণ্ড ঘূর্ণাবর্তের সৃষ্টি হওয়ায় আকস্মিক এই ধ্বস নেমেছে বলে পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, ভোররাত থেকে ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়। কয়েক মিনিটের মধ্যে আজগর আলীর একটি ঘর ও একটি টিউবওয়েল নদীতে দেবে যায়। এতে স্থানীয়দের মধ্যে ভাঙন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পেতে অনেকে বাড়িঘর, আসবাবপত্র অন্যত্র সরিয়ে নেয়। তীর রক্ষা বাঁধের পুরোনো ওয়াপদা বাঁধসংলগ্ন স্থানে এই ধস দেখা দেওয়ায় ব্যাপক ঝুঁকিতে রয়েছে ঐতিহ্যবাহী ঢেকুরিয়া হাট, কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং আশপাশের অর্ধশতাধিক পরিবার।

পাউবোর উপবিভাগীয় প্রকৌশলী এ কে এম রফিকুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে যমুনায় ঘূর্ণাবর্ত বেড়ে সেখানে ৫০ মিটার অংশ ধসে গেছে। ভাঙন রোধে বালুর বস্তা ফেলা হচ্ছে।

কাজীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জাহিদ হাসান সিদ্দীক জানান, ভাঙনে কমলা বেওয়া নামের এক বিধবার ঘরবাড়ি নদীগর্ভে চলে গেছে। তাঁকে আপাতত শুকনো খাবার দেওয়া হয়েছে। আগামীতে তাঁকে পুনর্বাসন করা হবে। চার-পাঁচটি পরিবারকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। পাউবোর লোকজন বৃষ্টির মধ্যে সকাল থেকে জিওব্যাগে বালু ফেলছে।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০২০২১, www.chulkati24.com

কারিগরি সহায়তায়ঃ-SB Computers