বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১১:০১ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ

আমাদের চুলকাঠি ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন chulkati24@gmail.com এই ই-মেইলে ।

পরিপাটি পোশাকে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব পরিচয়ে প্রতারণা

পরিপাটি পোশাকে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সচিব পরিচয়ে প্রতারণা

চুলকাঠি অফিস : নাম শরীফ। পুরো নাম শরীফ উদ্দিন। নেত্রকোনা জেলায় বাড়ি। পড়াশোনা করেছেন উচ্চ মাধ্যমিক (ভোকেশনাল) পর্যন্ত। কিন্তু নিজেকে পরিচয় দেন প্রধানমন্ত্রীর সহকারী রাজনৈতিক সচিব হিসেবে। কখনো বলেন, সরকারের উপসচিব। পরিপাটি পোশাকে চলেন সবসময়। গায়ে থাকে মুজিবকোট। গতকাল বুধবার কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের হাতে আটক হওয়ার পর জানা যায় শরীফ আসলে একজন প্রতারক। প্রতারণার শিকার মানুষ তাকে উদ্দেশ করে বলে ওঠেন, ‘ওরে বাটপার, ওরে চিটার’।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ সদর দপ্তরের ফেসবুক পেজে শরীফকে আটকের বিষয়ে বলা হয়েছে, ‘প্রতারক শরীফ উদ্দিন কখনো নিজেকে পরিচয় দেন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত রাজনৈতিক সচিব, কখনো উপসচিব, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। আবার নিজেকে দাবি করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসম্পাদক হিসেবে। সকলে তাকে চেনে শেখ আকাশ আহমেদ শরীফ নামে, বাড়ি গোপালগঞ্জ। তার ব্যবহৃত দুটি ফেসবুক আইডিতে ভিন্ন ভিন্ন পরিচয় প্রদান করেন প্রতারক শরীফ। প্রতারণার সুবিধার্থে সবসময় পরিধান করে মুজিব কোর্ট, আর বুকে শোভা পায় নৌকার প্রতীক। এ পরিচয় ব্যবহার করে সম্পর্ক গড়ে তোলেন অসংখ্য মানুষের সাথে।’

শরীফের বিষয়ে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে আরো জানানো হয়, ‘এ প্রতারকের প্রকৃত নাম শরীফ উদ্দীন, পিতা- ওয়াজেদ আলী, বাড়ি-নেত্রকোনা। পড়াশোনা করেছেন এইচএসসি (ভোকেশনাল) পর্যন্ত। পুলিশের কাছে আটকের পর প্রথমে সে নিজেকে পরিচয় করিয়ে দেয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত রাজনৈতিক সচিব হিসেবে। পরবর্তীতে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে শরীফ জানান, কিছুদিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আউট সোর্সিংয়ের কর্মী হিসেবে ৩ মাস পিয়নের কাজ করতে গিয়ে বহিষ্কৃত হয়।’

‘প্রতারণার জন্য মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাননীয় সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সাথে নিজের ছবি এডিট করে তা ফেসবুকে আপলোড ও সাধারণ মানুষকে দেখিয়ে তাদের বিভ্রান্ত করে আসছে।’ বলেও জানায় পুলিশ সদরদপ্তর।

আটকের বিষয়ে পুলিশের সদর দপ্তর থেকে বলা হয়েছে, ‘ফেসবুকের সূত্র ধরে প্রতারক শরীফের সাথে পরিচয় হয় কুমিল্লার হাবীবা ইসলাম খান এবং তার স্বামী ডা. বদরুল ইসলাম খানের সাথে। তারা বসবাস করেন কুমিল্লাতে। প্রতারক শরীফ উদ্দিন তাদের কাছে নিজেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত রাজনৈতিক সচিব পরিচয় দিয়ে কুমিল্লা বেড়াতে আসতে চান। সে গণভবনে থাকেন বলেও জানায় ওই দম্পতিকে।’

‘প্রতারক শরীফ উদ্দিন গতকাল বুধবার দুপুর একটার দিকে নোয়া মাইক্রোবাসযোগে তার স্থানীয় আরো চার ছেলের মোটরসাইকেল বহর নিয়ে ওই দম্পতির নিকট হাজির হয় এবং তাদের ফ্যাক্টরি ভিজিট করে। প্রতারক শরীফ উদ্দিনকে সরাসরি দেখে তার পরিচয় নিয়ে সন্দেহ পোষণ করেন ওই দম্পতি। তারা স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করেন।’ জানানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে।

শরীফের ফেসবুক আইডির লিংক ধরে কুমিল্লা জেলা পুলিশের সাইবার ইউনিট ঘটনাটি পর্যবেক্ষণ করতে থাকে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ওই গতকাল বেলা ৩ টায় প্রতারক শরীফ উদ্দিনকে তার সাথে থাকা অন্যান্য সহযোগীসহ কুমিল্লার বিসিক শিল্প নগরীর ইটিল্যাব (ইউনানী) ফ্যাক্টরি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রতারণার অভিযোগে শরীফ ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০২০২, www.chulkati24.com

কারিগরি সহায়তায়ঃ-SB Computers