শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৬:১২ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তিঃ

আমাদের চুলকাঠি ২৪ পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে , আমাদেরকে আপনাদের পরামর্শ ও মতামত দিতে পারেন chulkati24@gmail.com এই ই-মেইলে ।

করোনাকালে মোবাইলে কথা কমলেও বেড়েছে ইন্টারনেটের ব্যবহার

করোনাকালে মোবাইলে কথা কমলেও বেড়েছে ইন্টারনেটের ব্যবহার

করোনাকালে দেশে মোবাইল ফোনের ভয়েজ কলের সংখ্যা উল্লেখ্যজনক হারে কমে যাওয়ায় এ খাতের রাজস্বে প্রভাব পড়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। বিপরীতে ইন্টারনেটের ব্যবহার অনেক বাড়লেও মানসম্মত সেবা নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে। সমস্যার মূলে নেটওয়ার্ক পরিকল্পনার পাশাপাশি পর্যাপ্ত তরঙ্গ পাওয়ার অসুবিধার কথা জানিয়েছেন অপারেটররা। এদিকে মানসম্মত সেবা নিশ্চিতে অপারেটরদের চূড়ান্ত নোটিশ দেয়ার কথা ভাবছে সরকার।

করোনায় ঘরবন্দী মানুষের সামাজিক কিংবা ব্যক্তিগত যোগাযোগে, ভরসা এখন মোবাইল আর ইন্টারনেট। কিন্তু কমেছে ভয়েস কল নির্ভরতা। মোবাইল সেবাদাতাদের সংগঠন অ্যামটবের তথ্য বলছে, সাধারণ ছুটি শুরুর পরের দেড়মাসে গড়ে ভয়েস কল কমেছে ২০ শতাংশের মতো। বিপরীতে ২৫ শতাংশ বেড়েছে, ইন্টারনেটের ব্যবহার। অপারেটরদের আশঙ্কা, এতে তাদের আয় কমার সঙ্গে সঙ্গে কমবে সরকারের রাজস্ব।

গ্রাহকদের অভিযোগ, ভয়েস কলে মিলছে না গুণগত সেবা। আবার করোনার এ সময়ে, ইন্টারনেটের চাহিদা বাড়লেও, বাড়েনি সেবারমান।

অ্যামটবের মহাসচিব ব্রি. জে. (অব.) এস এম ফরহাদের দাবি, মানসম্পন্ন সেবা নিশ্চিত এককভাবে অপারেটরদের ওপর নির্ভর করে না। দরকার অন্যান্য অংশীদারীদের সক্রিয় ভূমিকা।

এজন্য তরঙ্গ কিনতে সরকারের কাছে প্রস্তাব দিয়েছে অপারেটররা। তবে প্রস্তাবের ধরনে সন্তুষ্ট নন ডাক ও টেলিযোগযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বিটিআরসির সবশেষ ফেব্রুয়ারি মাসের তথ্য অনুযায়ী, দেশে ১৬ কোটি ৬১ লাখ সেলফোন সংযোগের মধ্যে, ইন্টারনেট সেবার আওতায় রয়েছে প্রায় ১০ কোটি। যার প্রায় সাড়ে ৯ কোটিই সেলফোন অপারেটরদের ইন্টারনেট সেবায় যুক্ত।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায়..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০২০২, www.chulkati24.com

কারিগরি সহায়তায়ঃ-SB Computers